Best Eye Redness Allergy (চোখ ওঠা) Treatment at Home

অনেকেই চোখ লাল (eye redness allergy treatment) হয়ে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন। এটি (eye redness allergy disease) হয় সাধারণত ধূলোবালি কিংবা অ্যালার্জি থেকে। চোখের প্রেশার-গ্লুকোমার কারণেও চোখ লাল হয়ে যেতে পারে। শীতে বা ঠান্ডায় অ্যালার্জিজনিত সমস্যায় এই লাল চোখের সমস্যা বৃদ্ধি পায়। চোখের ভিতরে রক্তবাহগুলি ফেটে গেলেও এই সমস্যা হতে পারে৷ যদি ঘন সাদা বা হলুদ কিছু বের হয় তবে তা সম্ভবত একটি ব্যাক্টেরিয়াজনিত সংক্রামণ যাকে চোখ ওঠা (eye redness allergy disease)  বলা হয়। এছাড়াও কর্নিয়া আলসার, অ্যাকিউট গ্লুকোমা, ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি হলেও চোখ লাল হয়। আরও পড়ুন: ব্রন থেকে রেহায় পান এক নিমেষেই (Pimple Treatment)

কনজাঙ্কটিভাইটিস, ক্যালেজিয়ন এবং ক্যারাটাইটিস হলেও চোখ লাল (eye redness allergy)হয়। কনজেক্টিভাইটিস, যা “গোলাপী চোখ”, “চোখ উঠা” বা “লাল চোখ” নামেও পরিচিত, একটি সাধারণ চোখের অবস্থা। এটি কনজাংটিভা-এর একটি প্রদাহ বা সমস্যা। যে ঝিল্লি বা স্বচ্ছ পর্দা চোখের সাদা অংশ এবং চোখের পাতার ভিতরের অংশকে ঢেকে রাখে। এই ঝিল্লির মধ্যে, ছোট ছোট রক্তনালী রয়েছে যা কনজাংটিভা বিরক্ত বা এতে কোন সমস্যা হলে বড় হয়ে যায়। বর্ধিত রক্তনালী চোখকে লাল (eye redness allergy) দেখায়। আরও পড়ুন: জন্ডিস রোগের সাত সতেরো (Hepatitis B)

Table of Contents:
  1. চোখে লাল অ্যালার্জি হওয়ার কারণ কী? (What is the cause of eye redness allergy?)
  2. বাড়িতেই চোখের লাল অ্যালার্জির চিকিত্সা এবং প্রতিরোধ গড়ে তুলুন (Treatment and Prevention of eye redness allergy at home)

চোখে লাল অ্যালার্জি হওয়ার কারণ কী? (What is the cause of eye redness allergy?)

আমাদের চারপাশে থাকা ধূলিকণার কারণে চোখে অ্যালার্জি হতে পারে। কনজেক্টিভাইটিসের (eye redness allergy causes) সবচেয়ে সাধারণ কারণগুলি হল ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়া, তবে অন্যান্য কারণগুলির মধ্যে রয়েছে অ্যালার্জি, অতিবেগুনী আলো (Ultra violet ray) এবং রাসায়নিক বা পরিবেশগত কিছু সমস্যা। এছাড়াও, চোখের অ্যালার্জির পিছনে আরও কিছু কারণ থাকতে পারে, যেমন:

Eye Redness Allergy Disease
  • ভাইরাল কনজেক্টিভাইটিস (Viral conjunctivitis) একই ভাইরাস দ্বারা সৃষ্ট হয় যা প্রায়শই সাধারণ সর্দির জন্য দায়ী। এই ভাইরাসগুলি অত্যন্ত সংক্রামক (ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে সহজে ছড়িয়ে পড়ে), এবং যে কেউ চোখ খোলা রেখে, নাক ফুঁকিয়ে বা চোখ ঘষে ভাইরাসটিকে তার চোখে স্থানান্তর করতে পারে।
  • অ্যালার্জিক কনজেক্টিভাইটিস (Allergic conjunctivitis) ছোঁয়াচে নয় এবং সাধারণত বসন্ত, গ্রীষ্ম এবং শরতের প্রথম দিকে ঘটে। এটি সাধারণত উদ্ভিদের পরাগ এবং ঘাসের সংস্পর্শে আসার ফলে শুরু হয়। যারা প্রাণী বা ধূলিকণা থেকে অ্যালার্জিযুক্ত তারা সারা বছর আক্রান্ত হতে পারে। আরও পড়ুন: বাড়িতে বসেই বন্ধ করুন চুল পড়া (Hair Fall Treatment)
  • ব্যাকটেরিয়াল কনজাংটিভাইটিস বিভিন্ন ধরনের ব্যাকটেরিয়ার কারণে হয়ে থাকে। ব্যাকটেরিয়াজনিত কনজেক্টিভাইটিসও সংক্রামক এবং সাধারণত অ্যান্টিবায়োটিক চোখের ড্রপ বা মলম একটি ছোট কোর্সের প্রয়োজন হয় এই রোগটিকে সারিয়ে তোলার জন্য।
  • কিছু কিছু রাসায়নিক বস্তুর সংস্পর্শে এসেও এই সমস্যায় পড়তে পারেন, যেমন:
  1. সুইমিং পুল থেকে ক্লোরিন
  2. কন্টাক্ট লেন্স এর বিক্রিয়ার জন্য
  3. প্রসাধনী সামগ্রি
  4. শরীরের বাইরের বিভিন্ন বস্তুসমূহ
  5. চোখে আঘাত লাগলে হতে পারে এই eye redness allergy সমস্যা টি
  6. তীব্র আলো (যেমন, তুষার অন্ধত্ব)
  7. ধোঁয়া, অত্যাধিক পরিমানে বিড়ি, সিগারেট ও কার্বন মনোক্সাইড যুক্ত ধোঁয়া
  8. দুষিত ও অত্যাধিক ঠান্ডা বায়ু
  9. পাখির পালক বা ফুলের পরাগ রেনু
  10. গাছ এবং আগাছা থেকে অ্যালার্জি হতে পারে
  11. পোষা প্রাণী, বিশেষ করে কুকুর এবং বিড়ালের চুল বা লোম থেকেও হতে পারে এই অ্যালার্জি
  12. চোখের এলার্জি বিভিন্ন ছত্রাকের কারণেও হতে পারে
  13. অত্যাধিক পরিমানে চোখে হাত লাগানো
Symptoms Of Eye Redness Allergy Disease

কনজেক্টিভাইটিস কিছু নির্দিষ্ট শারিরিক অসুস্থ অবস্থার লোকেদের মধ্যেও হতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে থাইরয়েড রোগ, গাউট, নির্দিষ্ট ধরনের কিছু ক্যান্সার, রোসেসিয়া বা সোরিয়াসিস, যক্ষ্মা এবং সিফিলিসের মতো কিছু ত্বকের অবস্থা। আরও পড়ুন: স্পন্ডালাইটিস থেকে বাঁচবেন কিভাবে (Spondylitis Treatment)

চোখ লাল হওয়া বা চোখ ওঠার লক্ষণ কি কি? (What are the symptoms of eye redness allergy?)

চোখ ওঠা বা চোখ লাল হওয়া বা কনজেক্টিভাইটিসের লক্ষণ ও উপসর্গগুলির (symptoms of eye redness allergy) মধ্যে রয়েছে:

  • চোখ জ্বালা, ঘামাচি, বা তীব্র অনুভূতি
  • পুঁজের মতো স্রাব বাহির হওয়া
  • লাল রঙ ধারন হওয়া
  • আলোর প্রতি সংবেদনশীলতা
  • অত্যাধিক পরিমানে কান্না-কাটি করা মতো চোখে জল আসা

চোখ ওঠা বা কনজেক্টিভাইটিসের গুরুতর জটিলতা বা সমস্যা খুবই বিরল ও সেরকম ভাবে দেখা যায় না। আরও পড়ুন: কোন রোগের জন্য কোন ডাক্তার দেখাবেন (Specialist doctor types)

বাড়িতেই চোখের লাল অ্যালার্জির চিকিত্সা এবং প্রতিরোধ গড়ে তুলুন (Treatment and Prevention of eye redness allergy at home)

Eye Drops Given For Eye Redness Allergy Disease

চোখের লাল (eye redness allergy) এলার্জি দূর করার জন্য কিছু ঘরোয়া প্রতিকার এবং স্ব-যত্নের মধ্যে রয়েছে কোল্ড কম্প্রেস, বার বার পরিষ্কার জলে চোখ ধোয়া এবং কাঁচা মধু, টি ব্যাগ, গোলাপ জল, বা শসার টুকরো ব্যবহার করা।

কোল্ড কম্প্রেস কী এবং চোখের লালচে অ্যালার্জির চিকিৎসায় কোল্ড কম্প্রেস কী কাজে লাগে? (What is a Cold compress and what exploits a cold compress in eye redness allergy treatment?)

চোখের অ্যালার্জির (eye redness allergy treatment) কারণে চুলকানি এবং লালচে হওয়া ফোলাভাব দূর করার জন্য আপনি কোল্ড কম্প্রেস সিস্টেম তৈরি করতে পারেন। এটি করার জন্য, একটি পাত্রে বরফ জল নিন। এবার তাতে একটি সুতির কাপড় বা কাপড়ের টুকরো ভিজিয়ে ছেঁকে নিন। এই কাপড়টি আপনার চোখে লাগান। এটি আপনাকে ফোলা এবং চুলকানি থেকে তাত্ক্ষণিক উপশম দিবে। আরও পড়ুন: হাঁপানি বা অ্যাজমা থেকে কিভাবে বাঁচাবেন নিজের পরিবার কে (Asthma Treatment)

চোখের লালচে অ্যালার্জির চিকিৎসায় ফেস ওয়াশ কী কাজে লাগে? (What exploits a Face wash in eye redness allergy treatment?)

চোখের চুলকানি (eye redness allergy) এবং ফোলা দূর করতে, প্রথমে আপনার মুখ ও চোখ ভালভাবে ধুয়ে এটি সমাধান করার চেষ্টা করুন। মুখ ধোয়ার মাধ্যমে চোখের লাল অ্যালার্জি থেকে কিছুটা মুক্তি পাওয়া যায়। যদিও এটি আপনাকে তাত্ক্ষণিক স্বস্তি নাও দিতে পারে, এটি দীর্ঘমেয়াদে চোখের অ্যালার্জি মোকাবেলায় সাহায্য করবে।

চোখের লাল অ্যালার্জির চিকিৎসায় শসার টুকরোর ব্যবহার? (What uses of a Cucumber slice in eye redness allergy treatment?)

এছাড়াও আপনি শসা ব্যবহার করতে পারেন অ্যালার্জির লক্ষণ যেমন ফোলা, চুলকানি বা চোখ লাল হওয়া কমাতে। শসা ব্যবহার করতে, শসা দুই টুকরা নিন। এবার দুই চোখ বন্ধ করে স্লাইসগুলো বা টুকরো গুলো চোখের পাতায় রাখুন এবং কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিন। এটি আপনার চোখের ফোলাভাব কমাতে সাহায্য করবে। এর পাশাপাশি চুলকানি এবং লালভাব থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়। আরও পড়ুন: বাচ্চাদের ক্ষুধামন্দা দূর করবেন কিভাবে (Anorexia solution)

Eye Redness Disease

চোখের লাল অ্যালার্জি চিকিত্সায় গোলাপ জলের ব্যবহার কি? (What are the benefits of rose water in the treatment of eye redness allergy?)

চোখের অ্যালার্জি থেকে মুক্তি পেতে গোলাপ জল ব্যবহার করতে পারেন। গোলাপ জল প্রাকৃতিকভাবে অ্যালার্জি দূর করতে দারুন ভাবে কাজ করে। চোখের ফোলাভাব, লালভাব এবং শুষ্কতা দূর করতে গোলাপ জল ব্যবহার করতে পারেন। চোখের কোনো সমস্যা হলে তাতে ২ থেকে ৩ ফোঁটা (eye redness drops) গোলাপজল দিন। এটি আপনাকে অনেক স্বস্তি দেবে। আরও পড়ুন: অতিরিক্ত মেদ বা ওজন কমান বাড়িতেই (Weight loss solution)

চোখের লালচে অ্যালার্জির চিকিৎসায় টি ব্যাগের (চা ব্যাগ) উপকারিতা কী? (What are the benefits of Tea bags in the of eye redness allergy treatment?)

আপনি টি ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন চোখের অ্যালার্জির (eye redness allergy) উপসর্গ যেমন চোখের চুলকানি থেকে মুক্তি দিতে। এর জন্য গ্রিন টি বা ব্ল্যাক টি ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। সবুজ চায়ে এপিগ্যালোকাটেচিন গ্যালেট (ইজিসিজি) নামে একটি যৌগ থাকে যা চোখের প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। আরও পড়ুন: পাকস্থলির ঘা বা গ্যাস্ট্রিক আলসার থেকে সুস্থ থাকবেন কিভাবে (Gastric ulcer Treatment)

এটি ব্যবহার করতে, টি ব্যাগগুলি ফ্রিজে রাখুন বা 20 মিনিটের জন্য ঠান্ডা জলে ভিজিয়ে রাখুন। এর পরে, প্রায় 30 মিনিটের জন্য আপনার চোখের উপর ব্যাগ রাখুন। এই প্রতিকারে চোখের অ্যালার্জি অনেকাংশে কমানো যায়।

চোখের লালচে অ্যালার্জির চিকিৎসায় কাঁচা মধুর উপকারিতা কী? (What are the benefits of Raw honey in the treatment of eye redness allergy?)

কাঁচা মধুতে পরাগের গুড়ো বা টুকরো থাকে। এটি খাওয়ার মাধ্যমে অ্যালার্জির প্রভাব হ্রাস হয় কারণ এটি অ্যালার্জির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে। চোখের অ্যালার্জি দূর করার জন্য এটি খাওয়া খুবই উপকারি, তবে এটি চোখের মধ্যে বা চোখের উপর না নেওয়ায় ভালো।

এছাড়াও আরও কিছু কিছু টিপস ব্যবহার করতে পারেন বাড়িতেই চোখ ওঠা থেকে সাবধানে থাকার জন্য, যেমন:

Drop Uses In Eye For Eye Redness Allergy Treatment
  • কাজল বা চোখে ব্যবহারযোগ্য প্রসাধনী ব্যবহার না করাই ভালো। যারা উচ্চ রক্তচাপ কিংবা ডায়াবেটিসে ভুগছেন তাঁরা অবশ্যই বছরে কমপক্ষে দুবার চক্ষুচিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করে চোখ পরীক্ষা করাবেন। আরও পড়ুন: বাড়ির বয়স্কদের গাঁটের ব্যাথা থেকে কিভাবে সুস্থ রাখবেন (Arthritis Treatment)
  • রোদে বের হওয়ার সময় রোদ এবং ধুলোবালি থেকে চোখকে রক্ষা করার জন্য রোদচশমা ব্যবহার করুন। চোখ লাল হওয়া, চোখে ছানি পড়া বা চোখের অন্য কোনো রোগ হলে দেরি না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
  • চোখে হাত দেওয়ার আগে হাত পরিষ্কার করা এবং প্রতিদিন পরিষ্কার, পরিচ্ছন্ন বিছানা এবং তোয়ালে ব্যবহার করা উচিত। চোখের জীবাণুনাশক চিকিৎসা প্রয়োগ করার আগে, ধীরে ধীরে প্রতিটি চোখ আলাদা করে ভেজা কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করুন। এছাড়া সপ্তাহে অন্তত একবার বালিশ রোদে দিন, বালিশের ঢাকনা পরিষ্কার রাখুন।
  • কতক্ষণ চোখ লাল (eye redness allergy disease) থাকে এবং কতটা লাল থাকে এবং কোন ব্যথা আছে কিনা বা থাকলেও কতটা ব্যথা আছে তা দেখেই চিকিৎসা করা উচিত। ঠান্ডা সেঁক অথবা বন্ধ চোখের ওপর দিনে কয়েকবার ধোয়া কাপড় ব্যবহার করতে পারেন। আরও পড়ুন: করোনার থেকেও মারন জ্বর ডেঙ্গু থেকে বাচবেন কিভাবে (Dengue Fever)

চোখ আমাদের শরীরের খুবই নরম একটি অঙ্গ। অতএব, তাদের বিশেষ মনোযোগ দেওয়া উচিত। চোখে বা চোখের চারপাশে কিছু লাগানোর আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিন কারণ এগুলো আমাদের শরীরের খুবই স্পর্শকাতর অঙ্গ। এমতাবস্থায় একটি ছোট ভুলও বড় পরিণতি ডেকে আনতে পারে। এই ঘরোয়া প্রতিকারে আরাম না পেলে দ্রুত চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ করুন। এছাড়াও, ডাক্তারের দেওয়া নির্দেশাবলী পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে অনুসরণ করুন, যাতে আপনার চোখ সুরক্ষিত থাকে।

তথ্য সুত্র: উইকিপিডিয়া

==========

One share helps bloggers:

Leave a Comment